গাজা: টানেল নির্ভর ১৮ লাখ মানুষের জীবন!

Posted: August 6, 2014 in ভিডিও
Tags: , , ,

গাজার চলচ্চিত্র নির্মাতা মোহাম্মদ হারব নির্মিত ডকুমেন্টারি The Gaza Tunnels গত ৫ আগস্ট সম্প্রচার করেছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা। এই ডকুমেন্টারির আলোকে লিখেছেন জাহিদ রাজন

গাজার টানেল নিয়ে একটা ডকুমেন্টারি প্রচার করেছে আলজাজিরা। সেখানে দেখানো হয়েছে গাজার কঠিন এবং নির্মম বাস্তব পরিস্থিতি। চারিদিকের সীমান্ত বন্ধ। একদিকে ইসরাইল আরেকদিকে মিশর। খাবার ওষুধ এবং অন্যান্য জিনিস আনার একমাত্র রাস্তা টানেল। মানুষের সেখানে কার্যত আর কোন ব্যবস্থা নাই। একেবারে সহজ সরল সরঞ্জাম দিয়ে খোড়া হয় এসব টানেল। ছোট ছোট গবাদি পশু পর্যন্ত আনা হয় এই টানেল দিয়ে, এরপর পুলি দিয়ে টেনে তোলা হয়। কিছু কিছু টানেল দিয়ে গাড়ি প্রবেশ করতে পারে, তবে খুব সতর্কতার সাথে চালাতে হয়। আর সেটা দিয়ে আনা হয় সব নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস। একেবারে টানেল নির্ভর জীবন। এটাই গাজার অবরুদ্ধ ১৮ মিলিয়ন মানুষের ইকোনমির কেন্দ্র।

একবার কোন কারণে দেশের বাইরে গেলে পরিবারের কেউ মারা গেলে বা অসুস্থ হলে দেখতে আসার একমাত্র উপায় হল টানেল। এগুলো কোন আধুনিক টানেল নয়। অক্সিজেনের অভাব দেখা দেয়, শ্বাস নিতে কষ্ট হয়। আছে আলোর অভাব । ১ স্কয়ার মিটার টানেল দিয়ে ১ কিলোমিটারের মত লম্বা রাস্তা পুলি দিয়ে টেনে তোলা হয়।

কেউ কেউ টানেল খুঁড়তে গিয়ে মাটি চাপা পড়ে মারা যায়। টানেলের ভেতরে কাজ করার সময়, মালপত্র পরিবহনের সময় মারা যায় কেউ কেউ। প্রায় অন্ধকার এক একটা টানেল যেন এক একটা মৃত্যু কুপ। একজন টানেল ওয়ার্কার বললেন, এই টানেলের এক একটা কাঠ তার পরিবারের সদস্যের মত পরিচিত। হয়ত মৃত্যুর ঝুঁকিও তার কাছে তার পরিবারের সদস্যদের মত, যার সাথে দেখা হয় প্রতিদিন।

মৃত্যু সেখানে একেবারে স্বাভাবিক একটা ঘটনা। বাচ্চা, যুবক বা পূর্ণ বয়স্ক যে কেউ টানেলে আটকে পড়ে বা চাপা পড়ে মারা যেতে পারে। একবার চাপা পড়লে লাশ তোলার কাজটাও কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। এত সরু এই এক একটা টানেল যে এর মধ্যে ঢুকাই কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। হয়ত পরিবারের লোকজন তাদের প্রিয়জনের লাশটাই শেষবারের মত দেখতে পায় না। কিছু কিছু মরদেহ উদ্ধার করা হয় যেগুলো পচে গেছে, বিকৃত হয়ে গেছে। সেই সাথে আছে টানেল ধ্বংসের জন্য ইসরাইলের এবং মিশরের বোমা হামলার আশংকা। তবু মানুষ বেঁচে থাকে আশা নিয়ে। টানেলর সরু অন্ধকার গলি বেয়ে চলে জীবন সামনের আলোর দিনের অপেক্ষায়।

Advertisements

আপনার মন্তব্য লিখুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s