Archive for the ‘প্রতিক্রিয়া’ Category

মূল: তারিক রমাদান, অনুবাদ: সাবিদিন ইব্রাহিম

Tariq-Ramadanএই সন্ধ্যাটা (১৪ জুলাই) এমন হওয়া উচিত ছিল যেখানে প্রেসিডেন্ট ওবামা একটি ধর্মের মানুষদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করবেন। এই পবিত্র রমজান মাসে লাখো লাখো মুসলমান রোজা রাখছেন। তাদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করবেন ওবামা, এমনটাই কথা ছিল।

এটা সম্মানের রাজনৈতিক প্রকাশ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেটা এক রাজনৈতিক কূটচালের কারখানা হয়ে গেল যেখানে ওবামা যুক্তি দেখাচ্ছেন কিভাবে শতশত ফিলিস্তিনিকে মারা বৈধ এবং ইসরায়েলের কি অধিকার আছে তাদের আত্মরক্ষা করার। মুসলমান নেতারা এসব শুনতে বাধ্য ছিলেন।

আপনি বিস্মিত হতে পারেন ইফতার উদযাপন ও ইসরায়েলের মধ্যে সম্পর্ক কি? মুসলমান নেতাদেরকে এরকম লজ্জাজনক পরিস্থিতিতে ফেলার প্রকাশ্য ও অপ্রকাশ্য কারণ কি? এটা কি তাদের আনুগত্য পরখ করার জন্য অথবা তাদের আপোষ করার ক্ষমতা পরখ করার জন্য, নাকি বিশ্বাসঘাতকতা করার জন্য? ইফতারে উপস্থিত মুসলিম নেতারা নিরবই ছিলেন। (more…)

Advertisements

 ওয়াল স্ট্রীট জার্নালে বর্ণ-বিদ্বেষমুলক ‘ফিলিস্তিনি মহিলারা কোথায়’ শিরোনামে একটি নিবন্ধ লিখেছেন ব্রেট স্টিফেন।  কলামের জবাবে এই খোলা চিঠি লেখেন। কলামে স্টিফেন জোর দিয়ে বলেন ফিলিস্তিনি মায়েরা চান যে বড় হয়ে তাদের সন্তানরা শহীদ হবে। আর তারা হবেন শহীদ সন্তানের মা।

ওই নিবন্ধের জবাব দিয়েছেন আমেরিকান-আরব অ্যান্টি-ডিসক্রিমিনেশন কমিটির মিডিয়া সম্পর্ক বিষয়ক বিশেষজ্ঞ আমানি আল খাত্তাব।

আমানি আল খাত্তার লিখেছেন, প্রকৃতপক্ষে ইসরাইলের প্রত্যেক মা আইনত তাদের ছেলে-মেয়েদের এমন একটা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি করতে বাধ্য যে প্রতিষ্ঠান পদ্ধতিগতভাবে অপহরণ ও হত্যা করে। আর এই প্রতিষ্ঠানটির নাম হলো- ইসরাইলি প্রতিরক্ষা বাহিনী। (more…)

লিখেছেন মাহবুব মোর্শেদ

ইসরায়েল মুসলমানের ধর্মীয় শক্তিকে ভয় পায় না। হামাস, হিজবুল্লাহ, আল কায়দাকেও তারা ডরায় না। পণ্যবর্জন, ক্ষোভ বিক্ষোভ, মুসলিম জাহান, ওআইসি এইগুলা নিয়াও ইসরায়েলিদের ভয় পাইতে দেখলাম না। আমার ক্ষুদ্র চোখে একবারই ইসরায়েলকে ভয় পাইতে দেখছিলাম। আরব বসন্তের পর দেশে দেশে যখন গণতন্ত্রের হাওয়া বইতে শুরু করলো তখন ইসরায়েলের মধ্যে ভয় ঢুকে গিয়েছিল।

মিশরের গণতন্ত্র তাড়ানো হইলো মূলত ইসরায়েলের স্বার্থেই। আরব বসন্ত থমকে গেল। মধ্যপ্রাচ্যে যতদিন রাজতন্ত্র, বালতন্ত্র, বোতলতন্ত্র চলতে থাকবে ততোদিন ইসরায়েল ভয় পাবে না। মধ্যপ্রাচ্যে গণতন্ত্র আসেনি, আসবেও না। ফিলিস্তিন নিয়া ফিলিস্তিনের প্রতিবেশীরা কোনোদিন ন্যায্য অবস্থান নেবে না। ফলে ফিলিস্তিন সমস্যার সমাধানও হবে না। তবু ফিলিস্তিনের গুরুত্ব অসীম। ফিলিস্তিনের অসহয়াত্ব, অক্ষম আর্তনাদ মুসলমানের জন্য অনন্ত শিক্ষার উৎস। (more…)