sejan mahmudলিখেছেন সেজান মাহমুদ

আমেরিকার যে কোন প্রেসিডেন্সিয়াল নির্বাচনে ইহুদীদের সন্তষ্ট রাখা বা ইজরাইলের প্রতি ধনাত্নক মনোভাব না জানিয়ে কেউ নির্বাচিত হতে পারেন না। কারণ আমেরিকার মিডিয়া এবং ব্যবসা এদের দখলে। আজকে বিবিসির মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক সাংবাদিক জেরেমি বৌয়েনকে সরানো হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। কারণ তিনি লিখেছিলেন হামাস কর্তৃক গাজায় নারী এবং শিশুদের দিয়ে শিল্ড তৈরি করার প্রমাণ তিনি দেখেননি।

অন্যদিকে ক্ষমতায় আসার পরও আমেরিকার কোন প্রেসেডেন্ট যদি ইসরাইলের বিপক্ষে কিছু বলেন বা করেন সঙ্গে সঙ্গে তাঁর দুর্বল কোন জায়গায় আঘাত আসে। যেমন এসেছিল ক্লিনটনের ক্ষেত্রে মণিকা লিউনিস্কি বা ওবামার ক্ষেত্রে তাঁর ইকোনমিক ফেইলর। এমনও কথা শোনা যায়, আমেরিকার বড় বড় সিনেটর, কংগ্রেসম্যান, প্রেসিডেন্ট এবং এমন কি সিআইএ’র উচ্চপদস্থদের ব্যাপারে এফবিআইয়ের মতো নিজস্ব ফাইল আছে ইহুদীদের হাতে এবং সময় মতো তারা তা ব্যবহার করে। Read the rest of this entry »

abumorrশিরোনামের প্রশ্নটি করেছেন গাজা ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী, ফিলিস্তিনি ব্লগার ও মানবাধিকারকর্মী মাইসাম আবুমরআলজাজিরার মতামত বিভাগে প্রকাশিত মাইসামের পাঠানো এই চিঠিতে তিনি আশংকা প্রকাশ করেন, এই চিঠি তারও শেষ চিঠি হতে পারে। এটি অনুবাদ করেছেন গাউস রহমান পিয়াস

মনে পড়ছে গাজায় আন্তর্জাতিক আইন ও মানবাধিকারবিষয়ক আইসিআরসির এক কর্মশালায় একজন ফিলিস্তিনি প্রশ্ন করেছিলেন : ‘কী কী যোগ্যতা থাকলে এই মানবাধিকারগুলো আমিও পাব?’ ‘কিচ্ছু না। আপনাকে মানুষ হতে হবে, এইটুকুনই।’ তেমন না ভেবেই উত্তর দিয়েছিলেন প্রশিক্ষক

আজ আমিও প্রশ্ন করছি, মানুষ হিসেবে গণ্য হতে হলে আমাকে কী করতে হবে? কী হতে হবে? আমার জীবনও তো স্বাভাবিক মানুষের মতোই! আমি ভালোবাসি। ঘৃণা করি। কাঁদি। হাসি। আমি ভুল করি। শিখি। আমি স্বপ্ন দেখি। আঘাত দিই। আঘাত পাই। পিৎজা আমার খুব পছন্দ। টাইটানিক ছবিটি দেখেছি ছয়বার। ব্যাডলি কুপারের জন্য পাগল। আমার অসুখ হয়। কখনো এমন সস্তা কৌতুক করি যে নিজেরই হাসি পায় এবং সর্বশেষ যেদিন নিজেকে আয়নায় দেখেছিলাম আমাকে মানুষের মতোই দেখাচ্ছিল। Read the rest of this entry »

warsyগাজায় ইসরাইলি আগ্রাসের ব্যাপারে বৃটিশ সরকারের নীতির প্রতিবাদে পদত্যাগ করেছেন বৃটেনের প্রথম মুসলিম মন্ত্রী সৈয়দা ব্যারোনেস ওয়ার্সি।

বৃটেনের কনজারভেটিভ পার্টির সাবেক চেয়ারম্যান ওয়ার্সি পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রী ছিলেন।

এক টুইটার বার্তায় তিনি লিখেছেন মঙ্গলবার সকালে তিনি  বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের কাছে পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, ‘আমি গভীর অনুতাপের সাথে জানাচ্ছি যে আজ সকালে আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দিয়েছি।  আমি গাজা ইস্যুতে সরকারের নীতিকে আর সমর্থন করতে পারছি না।’

৪৩ বছর বয়সী পাকিস্তানী বংশোদ্ভূত ওয়ার্সি ২০১০ সালে মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পান। Read the rest of this entry »

মধ্যপ্রাচ্য ভিত্তিক ম্যাগাজিন মিডল ইস্ট আইতে সম্প্রতি প্রকাশিত এক নিবন্ধে তুলে ধরা হয়, কিভাবে গাজার উপর ইসরাইলের নৃশংস হামলায় গোপনে সৌদি আরব ও মিশর সহায়তা  করছে। Israel, Saudi Arabia and Egypt in daily contact over Gaza শীর্ষক নিবন্ধটি ভাষান্তর করেছেন জামির হোসেন

Prince Bandar

সৌদি-ইসরাইল-মিশরীয় সমন্বিত গোয়েন্দা চক্রের পালের গোদা প্রিন্স বন্দর বিন সুলতান

আরব রাষ্ট্রগুলোর একটি যৌথ কমান্ড গাজায় ইসরাইলি আগ্রাসন অব্যাহতভাবে চালিয়ে যেতে প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুকে শলা পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছে।

ডেবকা নেট উইকলি নামে ইসরাইলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের এক ওয়েবসাইট নিশ্চিত করেছে যে সৌদি বাদশাহ আব্দুল্লাহ এবং মিশরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল সিসি দৈনিক আলাপচারিতার মাধ্যমে অব্যাহতভাবে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন।

ওয়েবসাইটের তথ্য মতে, টেলিফোন আলাপের মাধ্যমে এই যোগাযোগ রক্ষা করা হচ্ছে। কিন্তু তাদের এই সহযোগিতার সম্পর্ক রাজনৈতিকভাবে স্পর্শকাতর হওয়ায় গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ আদান-প্রদানে বিশ্বস্ত কাউকে ব্যবহার করা হচ্ছে।

আর এজন্য কায়রোর সামরিক বিমানবন্দরে স্থায়ীভাবে পার্ক করা আছে একটি বিশেষ বিমান। ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু এবং মিশরের প্রেসিডেন্ট সিসির মধ্যে যখনই অতি গোপন কোনো সংবাদ বিনিময়ের প্রয়োজন হচ্ছে তখনই এই বিশেষ বিমান ব্যবহার করা হচ্ছে। গন্তব্যে পৌঁছতে  বিশেষ এই বিমানের ৯০ মিনিটের কম সময় লাগে। Read the rest of this entry »

লিখেছেন শাহেদ তাসলিম শাহাদাত

shahedকোনো শব্দ বা শব্দগুচ্ছের আগে # (হ্যাশ) চিহ্ন ব্যবহার করাকেই হ্যাশট্যাগ বলে। এক্ষেত্রে হ্যাশ চিহ্ন পরে ব্যবহৃত শব্দগুলোর মাঝে কোনো স্পেস থাকে না এবং হ্যাশ ট্যাগে ব্যবহৃত শব্দগুলোর প্রথম অক্ষর বড় হাতের লেখা হয়।

হ্যাশট্যাগ সাধারণত সোশ্যাল মিডিয়া যেমন: ফেসবুক, টুইটার ইত্যাদিতে ব্যবহার করা হয়। এটা ব্যবহারের মাধ্যমে কোনো আলোচ্য বিষয়কে সুনির্দিষ্ট করা হয় এবং এর মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়াতে খুব সহজেই জনমত সৃষ্টি করা যায়।

সম্প্রতি ফেসবুক ও টুইটারে #SupportGaza, #GazaUnderAttack, #GazaUnderFire, #FreeGaza, #FreePalestine, #IsraelUnderFire- এই হ্যাশট্যাগগুলো ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

মিডিয়ার পক্ষপাতদুষ্ট সংবাদ পরিবেশনকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে কার্যত এগুলোই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সারা বিশ্বে ফিলিস্তিন ও ইসরাইলের পক্ষে-বিপক্ষে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে। Read the rest of this entry »

বিশ্লেষণ করেছেন জাহিদ রাজন

ইসরাইলের সিকিউরিটি বাহিনী শিন বেটের সাবেক প্রধান ইয়ুভাল ডিসকিন (Yuval Diskin) জার্মান প্রভাবশালী সাময়িকী ‘স্পাইজেল ( SPIEGEL)’ এর সাথে সাক্ষাৎকারে বলেছেন হামাস তিন সেটেলার অপহরণের সাথে সরাসরি জড়িত না। এমনকি হামাসের নেতারাও এ ঘটনায় প্রথম দিকে বেশ অবাক হন। কিন্ত ঘটনার সাথে সাথেই হামাস বিপদ বুঝতে পারে এবং তারা এবারে রকেট হামলা বন্ধের কোন চেষ্টা করেনি যেটা সাধারণত তারা অন্য সময়ে করে থাকে।

নেতানিয়াহু তাহলে কেন এই যুদ্ধে জড়ালেন ? সম্ভবত, নেতানিয়াহু ব্যক্তিগতভাবে এই যুদ্ধ চাননি। রাইট উইং যুদ্ধবাজদের চাপে পড়ে তাকে আসতে হয়েছে। এটা পরিষ্কার যে, ২০০৬ সালের লেবানন যুদ্ধের মতই এ গ্রাউন্ড ইনভেশন ইসরাইলের জন্য একটা বড় ভুল ছিল।

তীব্র অর্থনৈতিক সংকট এবং অবরোধের মুখে হামাসের জনপ্রিয়তা এমনিতেই কমে আসছিল বলে কিছু সাম্প্রতিক জরিপে উঠে এসেছে। এছাড়া সিরিয়া ইস্যুতে ইরানের সাথে সম্পর্কের অবনতি এবং মিশরে ব্রাদারহুডের পতন হামাসের জন্য ছিল বড় বিপর্যয়। তারা নিজেদের ৪০ হাজারেরও বেশী সরকারি কর্মচারীদের বেতন পর্যন্ত দিতে পারছিল না। এ অবস্থায় হামাস স্পষ্টতই ছিল দুর্বল এবং এ সংকট নিরসনে একেবারে মরিয়া । যে কোন মূল্যে তারা এ অবরোধের অবসান চাইছিল এবং এ জন্যে অনেক ছাড় দিয়ে ঐক্যমতের সরকারে এসেছিল। Read the rest of this entry »

86340_3গাজার পশ্চিম তীরে জনপ্রিয় হচ্ছে হামাস। ইসরাইলের বিরুদ্ধে ব্যাপক প্রতিরোধ গড়ে তুলে হামাস পশ্চিম তীরের অধিবাসীদের মন জয় করে নিচ্ছে।

মেহের আল নাদেন নামে একজন রাস্তা পরিস্কারকারী বলেন তিনি গাজা অবরোধের প্রতিবাদে ইসরাইলের তৈরি সব পণ্য কেনা বন্ধ করে দিয়েছেন।

‘অন্তত এটা তো আমরা করতে পারি’, পশ্চিম তীরের বাসিন্দা এই ফিলিস্তিনি তার হতাশা ব্যক্ত করে বলেন।

তিনি গাজায় ইসরাইলি বর্বরতার একজন প্রত্যক্ষ সাক্ষী।

মেহের আল নাদেন নিজেকে সাধারণ জনগণের একজন হিসেবে বর্ণনা করে বলেন, ‘আমরা এই শরণার্থী শিবিরে ৭০ বছর ধরে আছি। আর আমি আমার ছেলেকে হামাসকে দান করে দিয়েছি।’ Read the rest of this entry »

Hamas-rocketsদ্য ইলেকট্রনিক ইন্তিফাদার একজন সহযোগী সম্পাদক ও অনুসন্ধানী সাংবাদিক আসা উইন্সটেনলি এ নিবন্ধটি লিখেছেন। তিনি বর্তমানে লন্ডনে অবস্থান করছেন। নিবন্ধটি বাংলায় অনুবাদ করেছে অনলাইন বাংলার সহযোগী সম্পাদক সাবিদিন ইব্রাহিম

অন্যান্য দেশের মতও ফিলিস্তিনে ভয়ানক রাজনৈতিক মতভিন্নতা রয়েছে। কিছু প্রত্যন্ত অঞ্চলে রক্ষণশীলরা হামাসকে সমর্থন করে, ফিলিস্তিনের ইসলামিক প্রতিরোধ যুদ্ধকে সমর্থন করে। এরকম একটি শহর হচ্ছে হেবরন। অন্যান্য অঞ্চলে ফিলিস্তিনি জাতীয়তাবাদী ফাতাহ’র শক্তি বেশি। কিছু ছোট ছোট বাম দলের সমর্থনও রয়েছে কয়েক জায়গায়।

কিন্তু এখন আর সে রাজনৈতিক ভিন্নতার জায়গা নেই। এখন ইসরাইলের রক্ত পিপাসু নীতি ফিলিস্তিনি জনগণের জীবন তছনছ করে দিচ্ছে। এখন ফিলিস্তিনি জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করার একটিই উপায়, সেটা হলো প্রতিরোধ। যেকোন উপায়ে ইসরাইলি আগ্রাসনের প্রতিরোধ করা। Read the rest of this entry »

3-isareli-juvenileতিন ইসরাইলি কিশোর অপহরণ ও হত্যার ঘটনায় হামাস জড়িত নয়। শুক্রবার ইসরাইলি পুলিশের মুখপাত্র মিকি রোজেনফিল্ড একথা স্বীকার করেছেন।

অথচ তিন কিশোরকে হামাস অপহরণের পর হত্যা করেছে বলে দাবি করে গত ১৯ দিন ধরে ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ভয়াবহ আগ্রাসন চালাচ্ছে ইসরাইল। মানবতাবিরোধী এ আগ্রাসনে হাজারেরও বেশি ফিলিস্তিনি মুসলমান নিহত হয়েছে। যাদের বেশির ভাগই শিশু ও নারী।

মিকি রোজেনফিল্ড বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘তিন ইসরাইলি কিশোরকে অপহরণের নির্দেশ হামাস দেয়নি। যারা এ তিন কিশোরকে হত্যা করেছে তাদের সাথে হামাসের কোনো সম্পর্ক নেই। তারা নিজেরাই এককভাবে এ কাজ করেছে।’ Read the rest of this entry »

86420_1ইহুদিবাদী ইসরাইলের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সাথে সব ধরণের সম্পর্ক শেষ করার ঘোষণা দিচ্ছে তুরস্কের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো।

গত তিন দিনেই তুরস্কের ১১১টি বিশ্ববিদ্যালয় ইসরাইলি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে সম্পর্ক শেষ করার ঘোষণা দিয়েছে। এই সংখ্যা দিনদিনই বাড়ছে।

প্রথমে তুরস্কের ৮৭টি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেক্টররা রবিবার ঘোষণা করেন যে গাজায় ইসরাইলি আগ্রাসনের নিন্দা না করলে তারা ইসরাইলি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সাথে একাডেমিক, সাংস্কৃতিক এবং সামাজিক সম্পর্কে চ্ছিন্ন করবেন।

রেক্টরদের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘গাজায় মানবতার বড় ট্রাজেডি ঘটছে।  পুরো বিশ্ব কানা ও বোবা হয়ে হয়ে আছে, কোনো প্রতিক্রিয়া নেই। ইসরাইলি সরকার শিশুদেরকে নির্মমভাবে বন্দুকের সামনে নিক্ষেপ করছে।’ Read the rest of this entry »