Posts Tagged ‘খালেদ মিশাল’

100_31জেরুজালেম: ইসরাইলের সাথে ৫০ দিন ব্যাপী যুদ্ধের পর গাজা নিয়ন্ত্রণকারী ইসলামপন্থী সংগঠন হামাসের জনপ্রিয়তা ব্যাপকভাবে বেড়ে গেছে বলে মঙ্গলবার প্রকাশিত এক জনমত জরিপে বলা হয়েছে। খবর রয়টার্স  ও এপির।

বিশেষ করে গাজা ও পশ্চিম তীরে হামাসের জনপ্রিয়তা এখন তুঙ্গে।

জনমত জরিপে দেখা যায়, আজ যদি ফিলিস্তিনে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হয় তবে হামাস নেতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল হানিয়া পাবেন ৬১ শতাংশ ভোট।

অন্যদিকে ফিলিস্তিনের বর্তমান প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস পাবেন তার প্রায় অর্ধেক- মাত্র ৩২ শতাংশ ভোট।

জরিপে হামাস প্রধান খালেদ মেশালের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করেছেন ৭৮ শতাংশ ফিলিস্তিনি। (more…)

Advertisements

লিখেছেন সাইফুল ইসলাম

86340_3জন্মেছিলেন ফিলিস্তিনের পরাধীন ভূমিতে। জীবন-জীবিকার প্রয়োজনে বাবা-মায়ের হাত ধরে শিশুকালেই দেশান্তরি হন কুয়েতে। এরপর কখনো জর্ডানে, কখনো সিরিয়ায় আবার কখনোবা কাতারে নির্বাসিত জীবন কাটাচ্ছেন তিনি।

তিনি খালেদ মেশাল- ফিলিস্তিনের এক আপসহীন সিপাহশালার। গাজার ইসলামপন্থী দল হামাসের প্রধান তিনি। মধ্যপ্রাচ্যের যে কোনো রাজা বাদশাহকে বিশ্বের যত মানুষ চেনেন, তার চেয়ে বিশ্বব্যাপী তার পরিচিতি অনেক বেশি। দেশহীন এই মানুষটি এখন আরব জাহানের এক মুকুটহীন সম্রাট।

পরিচিতিতে তিনি হয়তো মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার প্রতিদ্বন্দ্বী। স্বাধীনতাকামীদের হৃদয় স্পন্দন তিনি। নিজ মাতৃভূমিকে দখলদার ইসরাইলিদের কবলমুক্ত করতে লড়াই করছেন জীবন বাজি রেখে।

ইসরাইলি বর্বর বাহিনী যখনই গাজার ওপর হামলে পড়ে তখন বিশ্বব্যাপী উচ্চারিত হয় একটি নাম-খালেদ মেশাল। অথচ ইসরাইলি চক্রান্ত সফল হলে এতোদিনে তার ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন হতো।

হামাস নিয়ন্ত্রিত গাজায় সর্বশেষ ৫০ দিনের ইসরাইলি আগ্রাসনকে ফিলিস্তিনের মুক্তির সংগ্রামের পথে ‘মাইলস্টোন’ আখ্যা দেন এই নির্বাসিত হামাস নেতা। অথচ দু’বছর আগে হামাসের দায়িত্ব ছেড়ে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি। (more…)

লিখেছেন জাহিদ  রাজন

একজন পশ্চিমা সাংবাদিক গাজায় র‍্যান্ডমলি বেশ কিছু মানুষকে প্রশ্ন করেছেন । প্রশ্নটি ছিল তারা কি মনে করে এ অবস্থার জন্য হামাস দায়ী ? উত্তরে প্রায় সবাই মনে করে এর জন্য হামাস দায়ী নয়, বরং ইসরাইল দায়ী।

হামাস আগে রকেট ছুঁড়ে, হামাসের রকেটের বিনিময়ে ইসরাইল কয়েক শ টন বোমা ছুঁড়ে। এগুলো ইসরাইলের জন্য অনেক বেশি ভদ্র লজিক। হামাস না থাকলে কি হত ? হামাস প্রতিষ্ঠার আগে অবস্থা কি ছিল ? তখন কি ইসরাইলি আগ্রাসন ছিল না ? আরাফাত যিনি এত কম্প্রোমাইজ করলেন, অসলো চুক্তি করলেন (যেটা ছিল একটা ব্লান্ডার) তিনি কি শেষ রক্ষা করতে পেরেছিলেন ? তিনি নিজেই তো মারা গেলেন ইসরাইলের দেয়া পোলোনিয়াম বিষে। ওয়েস্ট ব্যাংক এর এখন কি অবস্থা ? সেখানে তো হামাস নাই। সেটা কি মুক্ত ? আসলে হামাস না থাকলেও অন্য একটা ছুতো বের করত ইসরাইল।

হামাস যখন সারা বছর চুপ ছিল তখন কি ইসরাইল নিরীহ জেলে, নারী- শিশু হত্যা করে নাই ? ইসরাইল কি ২০১২ এর যুদ্ধবিরতি চুক্তি ভঙ্গ করে নাই ? তাই হামাস রকেট ছুঁড়ে এই ধরণের যুক্তি ইসরাইলের জন্য না। কারণ ইসরাইল দখলদার। বছরের পর বছর আমার দেশ কেউ দখল করে নিলে, যে কোন সময়ে বিনা বিচারে গুলি বা হত্যা করলে (যেমনটা ইসরাইল করে), ব্রিটিশ এমপিও রকেট ছুঁড়তেন বলে মন্তব্য করেছেন। অতএব, হামাস না থাকলে এই সমস্যা সমাধান হত এরকম মনে করার কোন কারণ নাই। এটা একেবারে ফ্লড লজিক।

(more…)

86340_3অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় যুদ্ধবিরতির মার্কিন প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের প্রধান খালেদ মিশাল।

তিনি এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, গাজা উপত্যকার ওপর গত আট বছর ধরে চলা অবরোধ প্রত্যাহারের আগ পর্যন্ত তার সংগঠন যুদ্ধবিরতি সংক্রান্ত কোনো আলোচনায় বসবে না।

গাজায় ইসরাইলি বর্বর আগ্রাসন শুরুর ১৬তম দিনে বুধবার রাতে কাতারের রাজধানী দোহায় প্রথম জনসম্মুখে হাজির হন খালেদ মিশাল।

এর আগে বুধবার বাইতুল মোকাদ্দাসে (জেরুজালেমে) মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি ও ইহুদিবাদী প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু জানান, সংঘর্ষ বন্ধ হওয়ার আগ পর্যন্ত যুদ্ধবিরতি নিয়ে কোনো আলোচনা হবে না। অর্থাৎ হামাসকে আগে যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব মানতে হবে। (more…)

[গাজায় প্রচণ্ড আক্রমণ চালিয়ে যাচ্ছে ইসরাইল। নারী, শিশু, বৃদ্ধ কেউ রেহাই পাচ্ছে না ইসরাইলের  হত্যাকান্ড থেকে। তবে শক্তির ভারসাম্যে অনেক পিছিয়ে থাকলেও প্রতিরোধ করে যাচ্ছে গাজাবাসী। এই প্রতিরোধ সংগ্রামে নেতৃত্ব দিচ্ছে ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস। দীর্ঘ দিন ধরে গাজার লোকজনকে কঠোর অবরোধের মাধ্যমে তিলে তিলে হত্যা করার ষড়যন্ত্র করে আসছে ইসরাইল। অবরোধ প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত হামাস সংগ্রাম অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছে। হামাসের রাজনৈতিক নেতা খালেদ মিশাল গাজায় ইসরাইলি হামলার শুরুতেই মধ্যপ্রাচ্য ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল-মনিটরকে দৃঢ়ভাবে সে কথাই জানিয়েছেন। ইসরাইলের সামরিক শক্তি অনেক বেশি হলেও তারা হানাদার বাহিনী। আর হামাস লড়ছে মুক্তি সংগ্রামে। তাই ফিলিস্তিনিদেরই জয় নিশ্চিত বলে তিনি বিশ্বাস করেন। তিনি বলেছেন, প্রতিরোধ আন্দোলনের বীরেরা জানে, কিভাবে ইসরাইলকে মোকাবেলা করতে হবে। খালেদ মিশাল এখন কাতারে অবস্থান করছেন। কাতার থেকে নেয়া সাক্ষাতকারটি এখানে প্রকাশ করা হলো। অনুবাদ করেছেন হাসান শরীফ] (more…)