Posts Tagged ‘পশ্চিমা হিপোক্র্যাসি’

abumorrশিরোনামের প্রশ্নটি করেছেন গাজা ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী, ফিলিস্তিনি ব্লগার ও মানবাধিকারকর্মী মাইসাম আবুমরআলজাজিরার মতামত বিভাগে প্রকাশিত মাইসামের পাঠানো এই চিঠিতে তিনি আশংকা প্রকাশ করেন, এই চিঠি তারও শেষ চিঠি হতে পারে। এটি অনুবাদ করেছেন গাউস রহমান পিয়াস

মনে পড়ছে গাজায় আন্তর্জাতিক আইন ও মানবাধিকারবিষয়ক আইসিআরসির এক কর্মশালায় একজন ফিলিস্তিনি প্রশ্ন করেছিলেন : ‘কী কী যোগ্যতা থাকলে এই মানবাধিকারগুলো আমিও পাব?’ ‘কিচ্ছু না। আপনাকে মানুষ হতে হবে, এইটুকুনই।’ তেমন না ভেবেই উত্তর দিয়েছিলেন প্রশিক্ষক

আজ আমিও প্রশ্ন করছি, মানুষ হিসেবে গণ্য হতে হলে আমাকে কী করতে হবে? কী হতে হবে? আমার জীবনও তো স্বাভাবিক মানুষের মতোই! আমি ভালোবাসি। ঘৃণা করি। কাঁদি। হাসি। আমি ভুল করি। শিখি। আমি স্বপ্ন দেখি। আঘাত দিই। আঘাত পাই। পিৎজা আমার খুব পছন্দ। টাইটানিক ছবিটি দেখেছি ছয়বার। ব্যাডলি কুপারের জন্য পাগল। আমার অসুখ হয়। কখনো এমন সস্তা কৌতুক করি যে নিজেরই হাসি পায় এবং সর্বশেষ যেদিন নিজেকে আয়নায় দেখেছিলাম আমাকে মানুষের মতোই দেখাচ্ছিল। (more…)

Advertisements

warsyগাজায় ইসরাইলি আগ্রাসের ব্যাপারে বৃটিশ সরকারের নীতির প্রতিবাদে পদত্যাগ করেছেন বৃটেনের প্রথম মুসলিম মন্ত্রী সৈয়দা ব্যারোনেস ওয়ার্সি।

বৃটেনের কনজারভেটিভ পার্টির সাবেক চেয়ারম্যান ওয়ার্সি পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রী ছিলেন।

এক টুইটার বার্তায় তিনি লিখেছেন মঙ্গলবার সকালে তিনি  বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের কাছে পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, ‘আমি গভীর অনুতাপের সাথে জানাচ্ছি যে আজ সকালে আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দিয়েছি।  আমি গাজা ইস্যুতে সরকারের নীতিকে আর সমর্থন করতে পারছি না।’

৪৩ বছর বয়সী পাকিস্তানী বংশোদ্ভূত ওয়ার্সি ২০১০ সালে মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পান। (more…)

লিখেছেন আবু সামীহা

২০০১ সাল। আমি তখন ওকলাহোমা সিটি ইউনিভার্সিটির গ্র্যাজুয়েট স্টুডেন্ট।  প্রতি সপ্তাহান্তে একটা ডলার স্টোরে কাজ করি। কাজে যাওয়ার জন্য মাঝে মাঝে ট্যাক্সি কল করতে হয়। ওকলাহোমা আমেরিকার সেই অংশে অবস্থিত যেখানে সাদা খৃষ্টান বর্ণবাদীদের আধিপত্য। একদিন ট্যাক্সি আসলে দেখলাম ড্রাইভার সাদা এবং মনে হল তিনি আমাকে দেখে পসন্দ করেন নি।

তিনি আসলে কোন রাখ-ডাক না করে তাঁর অসন্তুষ্টি প্রকাশই করে দিলেন। তিনি বললেন, “আমি মনে করতাম ইমিগ্র্যান্টরা নিউ ইয়র্ক এবং ক্যালিফোর্নিয়াতেই শুধু আসে। তারা এখন ওকলাহোমাতেও আসতে শুরু করেছে।” যাই হোক, হাজার হলেও আমি তাঁর কাস্টমার। তাই আমার সাথে তিনি ফ্রেণ্ডলী হবার চেষ্টা শুরু করলেন। তাই তিনি আমাকে জিজ্ঞেস করলেন, “আপনি কোত্থেকে এসেছেন?” আমি জবাব দেবার আগেই তিনি নিজেই বললেন, “আমাকে অনুমান করতে দিন। আপনি নিশ্চয় ভারতীয়।” আমি দুষ্টামির স্বরে বললাম, “হ্যাঁ, আমার দাদা ভারতীয় ছিলেন, আমার বাবা ছিলেন পাকিস্তানী, আর আমি বাংলাদেশী।” বেচারা পুরো হতভম্ব হয়ে পড়লেন। বললেন, “এটা কী করে সম্ভব যে একই পরিবারের তিনটা পরম্পরা তিনটা ভিন্ন দেশের নাগরিক?”

আমি বললাম, “আসলে আমরা সবাই একই এলাকায় জন্মেছি এবং বড় হয়েছি। আমার বাপ ও দাদা ওখানেই মারা গেছেন। ব্যাপার যা হয়েছে তা হলঃ আমার দাদার সময়ে আমাদের এলাকাটা পুরোটা ভারত ছিল; এরপর আমার বাবার সময়ে দুটো দেশ হয়েছে – পাকিস্তান ও ভারত। আমরা পাকিস্তানের অংশে ছিলাম। পাকিস্তান আবার বিচ্ছিন্ন হয়েছে, পাকিস্তান ও বাংলাদেশে। আর আমি জ্ঞান হবার পর যে দেশ দেখেছি তা হল বাংলাদেশ।” তিনি দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে বললেন, “বাপরে, বড় জটিল আপনাদের ইতিহাস।”

(more…)

লিখেছেন জিয়া হাসান

ইসরায়েলি এবং পশ্চিমাদের নতুন অজুহাত শুনেছেন? সিরিয়াতে দেড় লক্ষ মানুষ যদি মারা যায়, তাহলে ১০০ থেকে ২০০ প্যালেস্টাইনিকে কেন মারা যাবেনা? শুনুন। কেন আমরা এই যুক্তির মধ্যে দিয়ে, ইঙ্গ-মার্কিন পশ্চিমা লিবারেল ভাবনার দেওলিয়াত্ত বুঝতে পারি।

প্রথমত। সিরিয়ার দুই পক্ষের মধ্যে যে যুদ্ধ সেইটা একটা যুদ্ধ। সেই খানে দুই পক্ষেই রয়েছে, শক্ত প্রতিপক্ষ। যাদের হাতে উভয়ের কাছে আছে, ট্যাঙ্ক, আর্মি এবং সামরিক যান বাহন।
কিন্তু, ইজরায়েল প্যালেস্টাইনের যে যুদ্ধ সেইটা কোন যুদ্ধ নয়। সেইখানে এক পক্ষে আছে, পৃথিবীর সব চেয়ে সর্বাধুনিক যুদ্ধাস্ত্রে সজ্জিত আর্মির মধ্যে একটা আর্মি, যার রয়েছে হেলিকপ্টার গান-শিপ, এফ১৬ বোমারু বিমান, ট্যাঙ্ক, আর্টিলারি এবং অপর পক্ষে আছে পাথর ছোড়া কিছু শিশু এবং তরুণ। নিজেকে রক্ষা করতে সম্পূর্ণ ভাবে অক্ষম এই জনগোষ্ঠীর আছে কিছু পাতাল দিয়ে পাচার করে আনা এক-৪৭ এবং কিছু বোমা, বারুদ আর কৃষি সার ব্যবহার করে হাতে তৈরি রকেট যা আকাশে ছুড়ে দিলে কোথায় পড়বে কেও বলতে পারে না। এবং এই রকেট দ্বারা ১০ বছরে ১০ জন ইজ্রায়েলিও মারা যায়নি। কিন্তু, ইজ্রায়েলিদের প্রিসিশান গাইডেড মিসাইল এবং অন্য অস্ত্র দিয়ে, ১০ বছরে ১০,০০০ জনের উপরে প্যালেস্টাইনি মারা গ্যাছে।

(more…)