Posts Tagged ‘সোশ্যাল মিডিয়ার গুরুত্ব’

Garnierবিশ্বজুড়ে পরিচিত ভোগ্যপণ্য প্রস্তুতকারী ব্র্যান্ড গার্নিয়ার তাদের পারফিউম, সাবান ও অন্যান্য কসমেটিক পণ্য ইসরাইলী নারী সৈনিকদের জন্য উপহার হিসেবে পাঠিয়েছে । এ নিয়ে অনলাইনে সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে।

ইসরাইল এডভোকেসি গ্রুপ Stand With Us ফেসবুকে এ সংক্রান্ত বেশ কিছু ছবি পোস্ট করেছে। তারা জানিয়েছে, এসব প্রসাধনী সামগ্রী গার্নিয়ারের ইসরাইলী ব্রাঞ্চ অনুদান হিসেবে দিয়েছে। (more…)

লিখেছেন শাহেদ তাসলিম শাহাদাত

shahedকোনো শব্দ বা শব্দগুচ্ছের আগে # (হ্যাশ) চিহ্ন ব্যবহার করাকেই হ্যাশট্যাগ বলে। এক্ষেত্রে হ্যাশ চিহ্ন পরে ব্যবহৃত শব্দগুলোর মাঝে কোনো স্পেস থাকে না এবং হ্যাশ ট্যাগে ব্যবহৃত শব্দগুলোর প্রথম অক্ষর বড় হাতের লেখা হয়।

হ্যাশট্যাগ সাধারণত সোশ্যাল মিডিয়া যেমন: ফেসবুক, টুইটার ইত্যাদিতে ব্যবহার করা হয়। এটা ব্যবহারের মাধ্যমে কোনো আলোচ্য বিষয়কে সুনির্দিষ্ট করা হয় এবং এর মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়াতে খুব সহজেই জনমত সৃষ্টি করা যায়।

সম্প্রতি ফেসবুক ও টুইটারে #SupportGaza, #GazaUnderAttack, #GazaUnderFire, #FreeGaza, #FreePalestine, #IsraelUnderFire- এই হ্যাশট্যাগগুলো ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

মিডিয়ার পক্ষপাতদুষ্ট সংবাদ পরিবেশনকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে কার্যত এগুলোই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সারা বিশ্বে ফিলিস্তিন ও ইসরাইলের পক্ষে-বিপক্ষে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে। (more…)

লিখেছেন জিয়া হাসান

ফেসবুক এবং টুইটারের পার্থক্যটা বোঝা জরুরী। টুইটার জিনিষটা পাবলিক ইউজের জন্যে তৈরি করা। এবং ফেসবুক জিনিষটা প্রাইভেট আলাপের জন্যে তৈরি করা। যদিও আমরা বাঙালিরা ফেসবুককে পাবলিক পোস্টের জন্যে ব্যাবহার করা শুরু করছি। বাস্তবতা হইলো, ফেসবুকে আপনি যেইটা লিখবেন সেইটার ভিজিবিলিটি যদি আপনি “পাবলিক” করেও দেন, তবুও সেইটা একটা সুনির্দিষ্ট লোকের কাছে পৌঁছাবে, যারা মূলত আপনার ফ্রেন্ড, সাবস্ক্রাইবার অথবা বেশি হইলে আপনার ফ্রেন্ড এবং সাবস্ক্রাইবারদের ফ্রেন্ড।বাকিদের কাছে পৌঁছাবেনা কারন, এইটা ফেসবুকের কাছে ব্যবসা। ফেসবুক চায়, আপনে তাদের এডারটাইজমেন্টটা ব্যবহার করেন।

ফেসবুক একটা এল্গরিদ্ম ব্যবহার করে,এর নাম এজর‍্যাঙ্ক।আপনার একটা লেখা কার কার কাছে পৌঁছাবে সেইটা নির্ভর করবে ফেসবুকের এই এলগরিদমের উপরে।

(more…)

লিখেছেন চিন্তিত চিন্তাবিদ

বিভিন্ন ইস্যুতে আমাদের একটা প্রশ্ন করতে দেখা যায় এই যে এত স্ট্যাটাস দেই, টুইট করি, ছবি শেয়ার করি এতে আদৌ লাভ হয় কি? আমাদের কথা তো আর কেউ শোনে না। অনলাইনে ঝড় তুলেই লাভ কি?

সোশাল মিডিয়াতে সক্রিয় থাকার প্রয়োজনীয়তাটা চ্যানেল ফোরের ব্লগে চার্লস ম্যাসনের Why Israel is losing the social media war over Gaza শীর্ষক আর্টিকেলটি পড়লে আরো ভালোভাবে বোঝা যায়। তিনি প্রমাণ দিয়ে বুঝিয়েছেন গতানুগতিক মিডিয়া কিভাবে সত্য প্রকাশের ক্ষেত্রে সোশাল মিডিয়ার কাছে হেরে যাচ্ছে।

গতানুগতিক মিডিয়াতে একটা খবর আসার আগে তাকে নানাভাবে রাঙ্গিয়ে-মুছিয়ে, নিজেদের মতো করে প্রকাশ করা হয়, যার ফলে খবরগুলো হয় একচোখা। আর অন্যদিকে সোশাল মিডিয়াতে খবরগুলোতে রঙ চড়ানোর সুযোগ থাকে না, যুদ্ধক্ষেত্র থেকে শক্তিশালী কোন ছবিসহ আপনার কাছে মুহুর্তে পৌছে যায়, কোন মধ্যম ব্যক্তির হস্তক্ষেপ ছাড়াই। ফলে খবরগুলো হয় অনেক বেশি জীবন্ত ও সত্য। (more…)

লিখেছেন জাহিদ রাজন

সোশ্যাল মিডিয়ার প্রভাব কত বেশি যারা আরব স্প্রিং সম্পর্কে কিছুটা জানেন তারাই বুঝতে পেরেছেন। মেইন স্ট্রীম মিডিয়ার অল্টারনেটিভ হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়ার গুরুত্ব অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। আপনি শাহবাগ আন্দোলনের পক্ষে বা বিপক্ষে যে পক্ষেই অবস্থান নিন না কেন আপনাকে মানতে হবে যে শাহবাগ আন্দোলন বাংলাদেশে একটা ভাল ইমপ্যাক্ট তৈরি করেছিল, যার নেপথ্যে ভূমিকায় ছিল সোশ্যাল মিডিয়া।

ইসরাইল ঘোষণা দিয়েছে, ইসরাইলের পক্ষে প্রচার চালানোর জন্য সরকার ইয়ুনিভারসিটির ছাত্রদেরকে স্কলারশিপ দিবে; যারা নিজেদের পরিচয় গোপন করে অনলাইনে আন্তর্জাতিক অডিয়েন্সকে এড্রেস করবে যাতে তারা যে সরকারের হয়ে কাজ করছে এটা কেউ বুঝতে না পারে। এ ঘটনায় সোশ্যাল মিডিয়ার গুরুত্ব আরও ভাল বুঝা যায়। প্রফেসর ফ্লিঙ্কেনস্টাইন যিনি ফিলিস্তিনের ইস্যুতে অনেক সরব তাকে এই ইস্যুতে একটি বই লিখতে বলায় তিনি বলেন মানুষ এখন বই পড়ে না। এর চেয়ে ফেসবুক টুইটার বেশি কার্যকর।

(more…)